শুক্রবার,৩রা এপ্রিল, ২০২০ ইং,২০শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,



উচ্চ শিক্ষার অপার সম্ভাবনা ইউরোপের দেশ স্লোভেনিয়া


প্রবাস সংবাদ :
২২.০৩.২০২০

রাকিব হাসান, স্লোভেনিয়া প্রতিনিধি : 

স্লোভেনিয়ার (Slovenia-এর) স্থানীয় ভাষায় Slovenija; আবার কেউ কেউ বলে থাকেন Republika Slovenija (স্লোভেনিয়ার স্থানীয় ভাষায় “j”-এর উচ্চারণ অনেকটা ইংরেজি অক্ষর “y” এর মতো)।  আজকে যে দেশটির কথা এখানে আলোচনা করবো সে দেশটি অত্যন্ত সুপরিচিত তার নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য বিশেষ করে বিভিন্ন পাহাড়-পর্বত, হৃদ এবং স্কি রিসোর্টের জন্য।
ভৌগলিক ভাবে মধ্য ইউরোপে অবস্থিত এ দেশটি এক সময় প্রাক্তন যুগোস্লাভিয়ার অংশ ছিলও।

স্লোভেনিয়ার রাজধানীর নাম স্থানীয়ভাবে কয়েকভাবে ডাকা হয় যেমন-লুজব্লিজানা, লুবজানা, লুবিয়ানা, লুজব্লিয়ানা, লুজবিজানা। লুবলিয়ানা দেশটির প্রধান শহর এবং যাবতীয় প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক কার্যকলাপের প্রধান কেন্দ্রবিন্দু, অত্যন্ত ছোটো একটি শহর এবং পায়ে হেঁটে এক ঘণ্টার মধ্যে পুরো শহরের গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলোর স্বাদ নিতে পারবেন তবে অত্যন্ত গোছালো এবং পরিপাটি ও পরিকল্পিত একটি শহর।

প্রায় ৭,৮২৭.৪ বর্গমাইল আয়তনের স্লোভেনিয়ার সর্বশেষ ২০১৯ সালে জাতিসংঘ কর্তৃক প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুযায়ী জনসংখ্যা ২০,৮১,৯৪৫ -এর কাছাকাছি এবং দেশটির প্রধান ধর্ম রোমান ক্যাথলিক খ্রিস্টান। স্লোভেনিয়ার অধিবাসীদের গড় আয়ু একাশি বছরের কাছাকাছি। স্লোভেনিয়াতে খ্রিস্টান ধর্মের পর সবচেয়ে বেশী সংখ্যক মানুষ ইসলাম ধর্মে বিশ্বাস করে যা দেশটির মোট জনসংখ্যার শতকরা তিন ভাগের কাছাকাছি এবং এ সকল জনগোষ্ঠীর বেশীরভাগ মানুষই বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা এবং আলবেনিয়া (প্রকৃতপক্ষে কসোভো) থেকে যুগোস্লাভ যুদ্ধের সময় স্লোভেনিয়াতে পাড়ি জমানো ইমিগ্র্যান্ট।

স্লোভেনিয়াতে উচ্চ শিক্ষা সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য

Quality of Education বিবেচনায় বৈশ্বিক বিভিন্ন সূচকে স্লোভেনিয়ার অবস্থান দ্বাদশ। স্লোভেনিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে “University of Ljubljana”, “University of Maribor”, “University of Nova Gorica”, “University of Primorska”, “Euro-Mediterranen University”-ইত্যাদি উল্লেখ্যযোগ্য। এদের মধ্যে University of Ljubljana এবং University of Maribor ও University of Nova Gorica QS World University Rankings, Times Higher Education Rankings-সহ বিভিন্ন আন্তর্জতিক সংস্থাগুলোর করা Ranking-এর তালিকায় পৃথিবীর প্রথম সাতশোটি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে স্থান পেয়েছে; বিশেষ করে “University of Ljubljana” এবং “University of Maribor” World Ranking-এ পাঁচশোর মধ্যে রয়েছে।

স্লোভেনিয়ার বিভিন্ন বিশ্বিদ্যালয়গুলোতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক স্টাডি প্রোগ্রাম রয়েছে ইংরেজিতে ব্যাচেলর, মাস্টার্স, পিএইচডিসহ সকল লেভেলে। সাধারণত প্রত্যেক বছর Autumn Session-এর জন্য অ্যাপলিকেশন গ্রহণ করা হয়; তবে কদাচিৎ কিছু কিছু সাবজেক্টে কিছু কিছু ইউনিভার্সিটিতে Winter Session-এর জন্যও অ্যাপলিকেশন নেওয়া হয়। প্রত্যেক বছরের অক্টোবর মাস থেকে স্লোভেনিয়ার বেশীর ভাগ ইউনিভার্সিটিগুলোতে অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়।

স্লোভেনিয়ার বেশীর ভাগ ইউনিভার্সিটিগুলোতেগুলোতে Apply-করতে হলে আপনাকে নিম্নে উল্লেখিত লিঙ্কে গিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলে অ্যাপলিকেশন আরম্ভ করতে হবে। প্রত্যেক বছর ফেব্রুয়ারি থেকে অ্যাডমিশনের জন্য অ্যাপলিকেশনগ্রহণ করা শুরু হয় এবং জুন মাস পর্যন্ত অ্যাপলিকেশন-এর সময়সীমা থাকে। অ্যাকাউন্ট চালু হয়ে যাওয়ার পর আপনাকে “Academic Year” এবং আপনার পছন্দের University Choose-করে একটা Online Application Form পূরণ করতে হবে। সেখানে আপনার Personal Details চাওয়া হবে।  সাধারণত কোনও ধরণের অ্যাপলিকেশনের ফী নেই।

https://portal.evs.gov.si/prijava/?locale=en

Online Application Form Fill-up করা হয়ে গেলে আপনার কাছে একটি আসবে এবং সেখানে আপনি একটি পিডিএফ ফাইল দেখতে পাবেন। আপনাকে এ পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে হবে এবং পরে সেটাকে প্রিন্ট আউট করে একটি Signature-দিতে হবে। Online Application Form Fill-up এর কয়েক দিনের মাথায় আপনার দেওয়া ঠিকানায় একটি চিঠি পাঠানো হবে। এরপর আপনাকে এ চিঠিতে উল্লেখিত ঠিকানায় প্রিন্ট আউট করা উক্ত Application Form-যেটিতে Signature-করতে বলেছিলাম সেটি কুরিয়ার সহযোগে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে হবে। সাথে আরও যে সকল ডকুমেন্ট লাগবে:-

i) যাবতীয় সকল Academic Transcript আর Certificate-এর Original Copy;

ii) যাবতীয় সকল Academic Transcript আর Certificate-এর এক সেট Attested Copy;

iii) Résumé অথবা Chronological description of the entire education;

iv) English Proficiency Test Report (Minimum Requirement CEFR B2);

এছাড়াও Masters এর জন্য আবেদন করবেন যারা তাঁদের থেকে অনেক সময় Motivational Letter, Reference Letter এ সকল Document চাওয়া হতে পারে।

স্লোভেনিয়ার ইউনিভার্সিটিগুলো বাংলাদেশ থেকে কোনও Certificate/Transcript গ্রহণ করে না যদি না সেটা Attestation করা না থাকে। স্লোভেনিয়ার ক্ষেত্রে বাহিরের দেশগুলো থেকে পড়ার জন্য আগ্রহী স্টুডেন্টদের দেশগুলো থেকে আসা শিক্ষার্থীদের অ্যাডমিশন, ইমিগ্রেশনসহ যাবতীয় প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে আর এ কারণে স্লোভেনিয়াতে  অ্যাডমিশন আর ইমিগ্রেশন দুইটি প্রক্রিয়াই জটিল এবং সময়সাপেক্ষ।

স্লোভেনিয়ার ইউনিভার্সিটি আপনার ডকুমেন্ট ততোক্ষণ পর্যন্ত গ্রহণ করবে না যতোক্ষণ পর্যন্ত না আপনার যাবতীয় Academic Transcript আর Certificate স্লোভেনিয়ার Ministry of Foreign Affairs দ্বারা Attested-হয়; আর স্লোভেনিয়ার Ministry of Foreign Affairs বাংলাদেশের কোনও ডকুমেন্ট ততোক্ষণ পর্যন্ত গ্রহণ না যতোক্ষণ পর্যন্ত না আপনি আপনার ডকুমেন্ট অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনাতে অবস্থিত বাংলাদেশের দূতাবাস থেকে সত্যায়িত করাতে পারছেন এবং তাঁদের ওয়েবসাইটে এটা সুনির্দিষ্টভাবে বলা আছে। একমাত্র ভিয়েনাতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে কোনও ডকুমেন্ট Attested-করা হলেই কেবলমাত্র স্লোভেনিয়ার Ministry of Foreign Affairs আপনার ডকুমেন্ট Attestation-এর জন্য গ্রহণ করবে। স্লোভেনিয়ার Ministry of Foreign Affairs Per Page Attestation-এর জন্য তিন ইউরো করে রাখে এবং দুর্ভাগ্যবশতঃ তাঁরা কোনও কুরিয়ার কপি গ্রহণ করে না; এমনকি ভিয়েনা ছাড়া অন্য কোনও জায়গায় অবস্থিত বাংলাদেশের এম্বাসি থেকে যদি আপনি Attestation-করিয়ে থাকেন সেটিও তাঁরা গ্রহণ করবে না। অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনাতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এম্বাসি আপনার Educational Documents ঠিক তখনই গ্রহণ করবে যখন আপনি আপনার ডকুমেন্ট বাংলাদেশের Ministry of Education আর Ministry of Foreign Affairs থেকে Attestation থাকবে। ভিয়েনার বাংলাদেশ এম্বাসি সত্যায়িত করতে কোনও ডকুমেন্টের প্রত্যেক পৃষ্ঠার জন্য দশ ইউরো খরচ রাখে। আর স্লোভেনিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনাতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস Attestation-এর সময় অরিজিনাল কপি দেখেই ডকুমেন্ট Attestation-করে। মনে রাখতে হবে ইউনিভার্সিটি অ্যাডমিশনের সময় শুধুমাত্র আপনার Educational Documents Attested-করাতে হবে। তাহলে বিষয়টি এভাবে দাঁড়ালো:-

i) সমস্ত Educational Certificate আর Transcript যদি সেটা S.S.C. আর H.S.C. এর কিংবা সমমানের পরীক্ষার Certificate কিংবা Transcript হয় তাহলে প্রথমে সেগুলো ফটোকপি করে স্ব স্ব শিক্ষা বোর্ড থেকে Attestation-করতে হবে আর যদি সেটা Bachelor অথবা Masters-এর Certificate কিংবা Transcript হয় তাহলে স্ব স্ব University-এর Registrar/Controller এর কাছ থেকে থেকে Attestation-করাতে হবে। Original Copy-তে Attestation-এর কোনও প্রয়োজন নেই;

ii) এরপর আপনাকে Ministry of Education-এ যেতে হবে সেখান থেকে Attestation-করানোর জন্য;

iii) Ministry of Education-থেকে Attestation হয়ে গেলে আপনাকে যেতে হবে Ministry of Foreign Affairs-এ Attestation-করানোর জন্য;

iv) Ministry of Foreign Affairs থেকে আপনার যাবতীয় Document Attested-হয়ে গেলে আপনাকে সেগুলো পাঠাতে হবে Austria-এর রাজধানী Vienna-তে অবস্থিত বাংলাদেশের Embassy-তে এবং সেখান থেকে Attestation-এর ব্যবস্থা করতে। Vienna-তে অবস্থিত বাংলাদেশের Embassy per page Attestation-এর জন্য 10 EURO খরচ জমা রাখে এবং আপনি Vienna-তে অবস্থিত বাংলাদেশের Embassy এর Attestation-এর জন্য Vienna কিংবা আশেপাশের কোনও জায়গায় বসবাসরত প্রবাসী কোনও বাঙালি ভাই কিংবা বোনের সাথে যোগাযোগ করে তাঁকে Authorise-করে তাঁর মাধ্যমে আপনার Document Attestation করাতে পারেন;

v) Vienna-তে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে Document Attested হয়ে গেলে সর্বশেষ আপনাকে আপনার Document পাঠাতে হবে Slovenia-এর Ministry of Foreign Affairs-এর কাছে এবং Slovenia-এর Ministry of Foreign Affairs আপনার Document Attested করলেই University সেগুলো Admission-এর জন্য গ্রহণ করবে। আগে বলে দিয়েছি যে Slovenia-এর Ministry of Foreign Affairs Per Page Attestation-এর জন্য 03 EURO করে রাখে এবং দুর্ভাগ্যবশতঃ তাঁরা কোনও Courier Copy Accept-করে না। কাউকে Appointment নিয়ে Physically যেতে হয় Ministry-তে Attestation-করতে এবং এক্ষেত্রে আপনি যেটা করবেন সেটা হচ্ছে কোনও প্রবাসী বাঙালি ভাই কিংবা বোনকে অনুরোধ করে তাঁর মাধ্যমে এ Attestation-এর ব্যবস্থা করা অথবা অনেক সময় আপনি যদি University-কে Request-করেন এবং Attestation-এর খরচ University-এর কাছে পাঠাতে পারেন তাহলে University-ও আপনার এ Attestation-এর ব্যবস্থা করে দিবে;  আরও একবার বলে দিই Slovenia-এর Ministry of Foreign Affairs এবং Vienna-তে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস Attestation-এর সময় Original Copy দেখেই Document Attestation-করে। Original Copy-তে Attestation করাতে হবে না কিন্তু Original Copy ছাড়া Slovenia-এর Ministry of Foreign Affairs এবং Vienna-তে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস Attestation-করবে না। আর Slovenia-এর Ministry of Foreign Affairs বাংলাদেশের কোনও Document ততোক্ষণ পর্যন্ত Accept-করবে না যতোক্ষণ পর্যন্ত না আপনি আপনার Document Vienna-তে অবস্থিত বাংলাদেশের দূতাবাস থেকে Attested-করাতে পারছেন এবং তাঁদের Website-এ এটা সুনির্দিষ্টভাবে বলা আছে। Vienna ছাড়া অন্য কোনও জায়গার Attestation তাঁরা Accept-করে না।

সাধারণত Slovenia-এর University-গুলো August-এর প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত সময় দেয় যাবতীয় Document পাঠানোর জন্য তবে এ সময়ের মধ্যে পাঠাতে না পারলে আপনি Extension পেতে পারেন এবং আপনাকে Extension পাওয়ার জন্য এ তারিখের আগে University-কে E-mail দিতে হবে।

আপনার Admission Confirm-হয়ে গেলে আপনি University থেকে Letter of Acceptance পাবেন এবং আপনাকে Courier-এর মাধ্যমে Letter of Acceptance পাঠানো হবে।

টিউশন ফী কী ভিসার আগে দিতে হবে না কী পরে দিতে হবে সেটা এ লেটার দেখে বোঝা যাবে। তবে স্লোভেনিয়াতে বেশ কিছু ক্ষেত্রে ভিসা এর পর টিউশন ফী পরিশোধের সুযোগ রয়েছে; তারপরেও এ লেটার না দেখে কিছু বলা যাবে না সুনির্দিষ্টভাবে। যদি ভিসার আগে টিউশন ফীএর কথা উল্লেখ থাকে তাহলে এ লেটার হাতে পাওয়ার পর পর যে কোনও ব্যাংকে গিয়ে স্টুডেন্ট ফাইল ওপেন করে টিউশন ফী পাঠানোর ব্যবস্থা করতে হবে। সেক্ষেত্রে ইউনিভার্সিটি টিউশন ফী গ্রহণ করার পর আপনাকে চূড়ান্ত “Letter of Enrolment” পাঠাবে।

ইউনিভার্সিটি-এর Enrolment নিশ্চিত হয়ে গেলে আপনাকে VISA কিংবা Temporary Residence Permit-এর জন্য অ্যাপ্লিকেশন করতে হবে।

স্লোভেনিয়ার কোনও এম্বাসি বাংলাদেশে না থাকায় আপনাকে ভিসা অথবা Temporary Residence Permit এর জন্য আবেদন করার ক্ষেত্রে দিল্লীতে যেতে হবে। আমি আপনাদেরকে দিল্লিতে অবস্থিত স্লোভেনিয়ার র এম্বাসির ওয়েবসাইট নীচে উল্লেখ করে দিচ্ছি।

http://www.newdelhi.embassy.si

আপনাদের সকলের সুবিধার জন্য আমি দিল্লিতে অবস্থিত স্লোভেনিয়ার এম্বাসির ঠিকানা এখানে উল্লেখ করে দিচ্ছিঃ-

Embassy of the Republic of Slovenia;
New Delhi; A – 5/4,
Vasant Vihar;
New Delhi 110 057;
India.

বিস্তারিত তথ্যের জন্যঃ-

http://www.newdelhi.embassy.si/index.php?id=37&L=1

ই-মেইলের মাধ্যমে আপনি স্লোভেনিয়ার এম্বাসিতে ভিসার জন্য অ্যাপোয়েনমেন্ট পেতে পারেন। এম্বাসিতে ই-মেইল করার ঠিকানাঃ-  [email protected]

এম্বাসির ফী ৭৭ ইউরো এ বছর থেকে,  এম্বাসির ওয়েবসাইটে  আপনি Bank Details-পাবেন যেখানে এ Fees জমা দিতে হবে। Embassy-এর Website-এ VISA Application Form-রয়েছে যেটা Download করে পূরণ করতে হবে। VISA/Temporary Residence Permit Application-এর প্রয়োজনীয় Documents:-

i) University-কর্তৃক প্রদত্ত Enrolment Letter;

ii) সংশ্লিষ্ট Ministry-কর্তৃক একটি Observation Letter যা University-এর যাবতীয় Procedure Complete হওয়ার পর Slovenia-এর সংশ্লিষ্ট Ministry আপনার কাছে প্রেরণ করবে;

iii) Passport-এর মেয়াদ কমপক্ষে তিন মাস থাকতে হবে (তবে ছয় মাস হলে উত্তম) এবং অন্ততপক্ষে দুইটি ফাঁকা পৃষ্ঠা থাকতে হবে এবং সেই সাথে পুরো Passport-এর Photocopy এবং Apply-এর তিন বছরের মধ্যে যদি কোনও দেশের VISA কিংবা Arrival/Departure Seal এর ফটোকপি;

iv) Medical Insurance;

v) Police Clearance Certificate (Police Clearance Certificate কোনও ভাবেই যেনও তিন মাসের অধিক পুরাতন না হয় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে);

vi) Self-financing Student-হলে Bank Statement আর Bank Solvency Certificate-এর Original Copy. Bank Statement কমপক্ষে ছয় মাসের হতে হবে এবং এক বছরের Tuition Fees, থাকা-খাওয়া এবং আনুসাঙ্গিক খরচ মিলিয়ে যে পরিমাণ খরচ দাঁড়ায় তার সমপরিমাণ অর্থ Bank-এ থাকতে হবে। Financial Sponsorship-এর Affidavit অত্যাবশ্যক। Sponsor-যদি অন্য কেউ হয় সেক্ষেত্রে একটা লিখিত Statement অত্যাবশ্যক যেখানে উল্লেখ থাকতে হবে যে Slovenia-তে থাকাকালীন সময়ে তিনি আপনার লেখাপড়া এবংথাকা-খাওয়া সহ যাবতীয় ব্য্যভার বহন করতে চলেছেন  এবং এ লিখিত Statement Notorised করতে হবে কিংবা প্রথম শ্রেণীর কোনও ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা সত্যায়িত করতে হবে;

vii) Scholarship Holder-হলে Scholarship-এর Letter;

viii) Flight-এর Reservation;

ix) 4.5 cm X 3.5 cm এর দুই কপি ছবি;

x) Accommodation-এর Confirmation. University-এর সাথে যোগাযোগ করে তাঁদের নির্দেশনা অনুযায়ী আপনি এ Confirmation-পেতে পারেন;

xi) সমস্ত Certificate এবং Mark-sheet এক সেট Original এবং এক সেট Attested Copy. Embassy Face-এর জন্য Certificate এবং Mark-sheet এর Copy-গুলো বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে Attestation-করে নিলেই হবে;

xii) English Proficiency Test Report (Minimum Level B2). Delhi-তে অবস্থিত Slovenia-এর Embassy-এর Website-এ IELTS-এর কথা উল্লেখ আছে;

xiii) Birth Certificate-এর কপি। Birth Certificate English-এ হতে হবে এবং Ministry of Foreign Affairs-দ্বারা সত্যায়িত হতে হবে;  স্লোভেনিয়াতে যেহেতু মিনিস্ট্রি বাহিরের দেশগুলো থেকে আসা শিক্ষার্থীদের অ্যাডমিশন, ইমিগ্রেশনসহ যাবতীয় প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করে যা ইতোমধ্যে উল্লেখ করেছি তাই আমি স্লোভেনিয়ার মিনিস্ট্রির ওয়েবসাইটও এখানে উল্লেখ করে দিচ্ছি সকলের জ্ঞাতার্থে।

http://www.mzz.gov.si/en/

এ সকল ডকুমেন্ট অ্যাপোয়েমেন্টের তারিখে আপনি এম্বাসিতে গিয়ে জমা দিবেন। এম্বাসি ডকুমেন্ট জমা নেওয়ার পাশাপাশি আপনার ইন্টারভিউ এবং বায়োম্যাট্রিক নিবে।

ভিসার সিদ্ধান্ত আসতে কমপক্ষে চার থেকে ছয় সপ্তাহ সময় লাগে; এজন্য ভালো হয় যদি এম্বাসির যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করার পর দিল্লি থেকে পাসপোর্ট Withdrawal-করে আপনি দেশে চলে আসেন এবং পরবর্তীতে আবার যখন ভিসার সিদ্ধান্ত আসার পর আপনি আবার দিল্লিতে গেলেন এম্বাসির উদ্দেশ্যে।

স্লোভেনিয়াতে বাহিরের দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য স্কলারশিপের সুযোগ সীমাবদ্ধ তবে বিশ্ববিদ্যালয় ভেদে অ্যাকাডেমিক রেজাল্ট-এর ভিত্তিতে অনেক সময় ইউনিভার্সিটির সাথে যোগাযোগ করে হয় তো বা কিছু স্কলারশিপ বা স্টাইপেন্ডের ব্যবস্থা করা যায়। এজন্য সরাসরি সংশ্লিষ্ট ইউনিভার্সিটির সাথে যোগাযোগ করতে হবে। স্লোভেনিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে টিউশন ফী সাধারণত ২,৫০০-৪,০০০ ইউরো এক বছরে তবে University of Ljubljana কিংবা University of Maribor-এর মতো প্রসিদ্ধ বিশ্ববিদ্যালয়ে কিছু সাবজেক্ট আছে যেখানে এক বছরের টিউশন ফী ৮,০০০ ইউরোর মতো হতে পারে।

সম্প্রতি দিল্লীতে অবস্থিত স্লোভেনিয়ার এম্বাসি স্টুডেন্ট ভিসার অ্যাপ্লিকেশনের ক্ষেত্রে English Proficiency Test বিশেষ করে IELTS (Minimum Level CEFR B2) বাধ্যতামূলক করে দিয়েছে। বিশেষ করে যারা Bachelor-এর জন্য Apply করবেন তাঁদের জন্য এখন ক্ষেত্রে English Proficiency Test বিশেষ করে IELTS বাধ্যতামূলক।

(Reference:-http://www.newdelhi.embassy.si/index.php?id=919&L=1)

ইতোমধ্যে বলেছি যে EF EPI Index-অনুসারে স্লোভেনিয়ার অবস্থান বর্তমানে সারা পৃথিবীতে নবম আর এ কারণে দেশটির বেশীর ভাগ মানুষই খুব ভালো ইংরেজি জানেন বলাবাহুল্য। ইংরেজি জ্ঞান মোটামুটি যাবতীয় সকল কাজ পরিচালনা করা সম্ভব তবে কোনও চাকুরী পেতে চাইলে স্লোভেনিয়ার স্থানীয় ভাষায় দক্ষতা প্রয়োজন। “Mjob Service” এবং “E-studentski Servis” নামে দুইটি অর্গানাইজেশন রয়েছে যারা স্টুডেন্টদের জন্য চাকুরীর  এর ব্যাপারে সব ধরণের সহযোগিতা দিয়ে থাকে এবং এ দুইটি অর্গানাইজেশন স্লোভেনিয়ার প্রায় সকল ইউনিভার্সিটি কর্তৃক নিবন্ধিত এবং স্বীকৃত। তবে এখনও দেশটিতে ঘণ্টা হিসেবে মজুরি খুব বেশী একটা ওপরে নয়। দেশটির জীবনযাত্রার ব্যয়ও খুব বেশী একটা উচ্চ এমনটা বলা যাবে না। সাধারণ দুইশো বিশ ইউরো হলে আমার এক মাসে ভালো মতো চলে যায়, তবে গড়পত্তা হিসেবে একজন স্টুডেন্টের এক মাসে থাকা এবং খাওয়া মিলিয়ে খরচ আড়াইশো থেকে তিনশো ইউরো পর্যন্ত লাগে। অর্থাৎ দেশটির সাধারণ মানুষের আয়ের সাথে জীবনযাত্রার ব্যয় অনেকখানি সামঞ্জস্যপূর্ণ। তবে এক সময় সমাজতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার প্রচলন ছিলও এমন দেশগুলোতো বটেই এমনকি মাল্টা, গ্রীস কিংবা পর্তুগালের মতো পশ্চিম ইউরোপের দেশগুলো থেকেও অর্থনৈতিক ভাবে স্লোভেনিয়া শক্তিশালী। এমনটি বলছে International Monetary Fund (IMF), World Bank-সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো। সম্প্রতি দেশটির পার্লামেন্টে মাসিক ন্যূনতম মজুরি সাড়ে নয়শো ইউরো করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মাসিক ন্যূনতম মজুরি হিসেবে  বর্তমানে স্লোভেনিয়া স্পেন থেকে এর দিক থেকে সামান্য পিছিয়ে। পার্টটাইম চাকুরী করে ভালোমতো থাকা এবং খাওয়ার খরচ আপনি তুলতেও পারলেও টিউশন ফী আপনি তুলতে পারবেন না পার্টটাইম কাজ করে। তবে অস্ট্রেলিয়া, গ্রেট ব্রিটেন, নিউ জিল্যান্ড এ সকল দেশে যে রকম নিয়ম আছে যে স্টুডেন্ট অবস্থায় একজন ব্যক্তি এক সপ্তাহে বৈধভাবে বিশ ঘণ্টার বেশী কাজ করতে পারবেন না, স্লোভেনিয়ার আইনে এ রকম কিছু সুনির্দিষ্ট করে এখনও তেমন কিছু উল্লেখ করা হয় নি। এছাড়াও স্টুডেন্টদের জন্য স্লোভেনিয়াতে “Subsidised Meal” নামে এক ধরণের পরিসেবা চালু রয়েছে এ পরিসেবার অধীনে কিছু নির্দিষ্ট রেস্টুরেন্টে আপনি অত্যন্ত সাশ্রয়ী মূল্যে খাবার উপভোগ করতে পারবেন।

এখন আসি Permanent Residence-প্রসঙ্গে। আসলে বাহিরে যারা পাড়ি জমান আমাদের মতো উন্নয়নশীল দেশগুলো থেকে তাঁদের সকলের চিন্তা থাকে কীভাবে ইউরোপ, নর্থ আমেরিকা কিংবা ওশেনিয়ার কোনও একটি উন্নত রাষ্ট্রে স্থায়ী হওয়া যায়। স্লোভেনিয়া এ ক্ষেত্রে আমাদের অনেকের কাছে একটি পছন্দের ডেসটিনেশন হতে পারে এবং স্লোভেনিয়ার ক্ষেত্রে আরও একটি বড় প্লাস পয়েন্ট হচ্ছে এখনও এখানে খুব বেশী বাহিরের মানুষ নেই। স্লোভেনিয়ার Immigration Policy দীর্ঘ মেয়াদে যারা দেশটিতে বসবাস করতে চান তাঁদের জন্য এখনও মোটামুটি আশানুরূপ বলা চলে। দেশটির মন্ত্রণালয়ে প্রকাশিত ওয়েবসাইটে দেওয়া ততথ্য অনুযায়ী দেশটিতে পার্মানেন্ট রেসিডেন্স প্রাপ্তিরপাওয়ার শর্ত হিসেবে একটানা পাঁচ বছর বৈধভাবে বসবাস করার এবং সেই সাথে আপনার যদি ফুলটাইম কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকে এ পাঁচ বছর তাহলে আপনি স্লোভেনিয়ার পার্মানেন্ট রেসিডেন্স প্রাপ্তির  জন্য আবেদন করতে পারবেন। আর যদি আপনি শিক্ষার্থী হন তাহলে একটানা দশ বছর বৈধভাবে স্লোভেনিয়াতে বসবাস করতে হবে। অর্থাৎ শিক্ষার্থী অবস্থায় পার্মানেন্ট রেসিডেন্স প্রাপ্তির ক্ষেত্রে দুই বছরকে এক বছর হিসেবে বিবেচনা হয়। উদাহরণস্বরূপ কেউ যদি তিন বছরের ব্যাচেলর কোর্স সম্পন্ন করে স্লোভেনিয়া থেকে তাহলে এ তিন বছরকে অর্ধেক অর্থাৎ দেড় বছর এবং সেই সাথে আরও সাড়ে তিন বছর ফুলটাইম কাজ করার অভিজ্ঞটা দেখাতে পারলেই তিনি স্লোভেনিয়ার পার্মানেন্ট রেসিডেন্স পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। প্রত্যক বছর শেষে টেম্পোরারি রেসিডেন্স পারমিট রিনিউ করার ক্ষেত্রেও এখন পর্যন্ত সে রকম ঝামেলা নেই এখন পর্যন্ত, স্টুডেন্ট হলে শুধু মাত্র একটি সার্টিফাইড লেটারের প্রয়োজন হয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে আপনি এখানে পড়াশুনা করছেন আর Employee হলে কাজের যাবতীয় ডকুমেন্ট উপস্থাপন করতে হয়। তবে আমরা যারা বাংলাদেশের নাগরিক তাঁদের ক্ষেত্রে প্রথম বার টেম্পোরারি রেসিডেন্স পারমিটের জন্য আবেদন করতে হলে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এবং জন্ম নিবন্ধন সার্রটিফিকেটের কপির প্রয়োজন হয়। পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এবং জন্ম নিবন্ধন সার্রটিফিকেটের কপি অবশ্যই বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে সত্যায়িত অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনাতে অবস্থিত বাংলাদেশের এম্বাসি থেকে প্রি-লিগালাইজ করতে হবে এবং সর্বশেষ এদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে লিগালাইজেশন করে স্থানীয় ইমিগ্রেশন অফিসে (স্লোভেনিয়ার স্থানীয় ভাষায় Upravna Enota) এ জমা দিতে হয়। টেম্পোরারি রেসিডেন্স পারমিট পাওয়ার পর সেটি আপনার বাড়ির মালিক কিংবা হোস্টেলের কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দিতে হবে এবং আপনাকে স্থানীয় পুলিশের থেকে একটি সার্টিফিকেট নিতে হবে যে আপনি এ ঠিকানায় বসবাস করছেন। সাধারণত আপনার হোস্টেল কর্তৃপক্ষ কিংবা আপনার বাড়ির মালিক আপনার হয়ে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের কাছে এ রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে দিবে। পার্মানেন্ট রেসিডেন্স প্রাপ্তির ক্ষেত্রে ইংরেজির পাশাপাশি স্লোভেনিয়ার স্থানীয় ভাষা, সংস্কৃতি এবং ইতিহাসের ওপর দক্ষতা প্রয়োজন।

ভিসা এবং অভিবাসন সংক্রান্ত বিভিন্ন নিয়মের মাঝে-মধ্যে পরিবর্তন আসে, তাই চেষ্টা করবেন নিয়মিত এম্বাসি অথবা ইমিগ্রেশনের সাথে সম্পর্কিত ওয়েব-সাইটগুলো মাঝে-মধ্যে অনুসন্ধান করা।
আশা করি স্লোভেনিয়া সম্পর্কে আমার এ লেখাটি আপনাদের সকলের ভালো লেগেছে এবং এ পর্যায়ে আসার পর এতোটুকু নিশ্চিত যে স্লোভেনিয়া সত্যি একটি অসাধারণ দেশ। যদি সত্যি আপনাদের কাছে আমার এ লেখাটি ভালো লেগে থাকে তাহলে আজই বেরিয়ে পড়ুন এবং স্বাদ নিন মধ্য ইউরোপে অবস্থিত ছোট্টও সুন্দর স্লোভেনিয়ার।

রাকিব হাসান : শিক্ষার্থী-University of Nova Gorica,স্লোভেনিয়া (দ্বিতীয় বর্ষ ব্যাচেলর অব সায়েন্স ইন ফিজিক্স অ্যান্ড অ্যাস্ট্রোফিজিক্স)

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি