বুধবার,৮ই এপ্রিল, ২০২০ ইং,২৫শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,
  • প্রচ্ছদ » জাতীয় » জাপানে টেকনিক্যাল ইন্টার্ন পাঠানোর অনুমতি পেল ১১ রিক্রুটিং এজেন্সি



জাপানে টেকনিক্যাল ইন্টার্ন পাঠানোর অনুমতি পেল ১১ রিক্রুটিং এজেন্সি


প্রবাস সংবাদ :
১৮.০৯.২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাপান হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের অন্যতম শ্রমবাজার। দেশটিতে বড় পরিসরে দক্ষ শ্রমিক পাঠাতে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় তৎপর। এতোদিন শুধু সরকারিভাবে দেশটিতে টেকনিক্যাল ইন্টার্ন পাঠানো হতো। কিন্তু, জনশক্তি রপ্তানির পরিধি বাড়াতে বেসরকারি খাত তথা রিক্রুটিং এজেন্সিকেও সম্পৃক্ত করেছে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়। ১১ টি প্রতিষ্ঠানকে জাপানে টেকনিক্যাল ইন্টার্ন পাঠানোর অনুমোদন দিয়েছে তারা।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব কাজী আবেদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক অনুমোদনপত্রে ১৫ লাখ টাকা জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোতে (বিএমইটি) জমা দেয়ার শর্ত দেয়া হয়েছে।

যে ১১ টি রিক্রুটিং এজেন্সি জাপানে অনুমোদন পেল

তালিকার এক নম্বরে রয়েছে আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য জিল্লুল হাকিমের মিতুল ট্রেডিং (আরএল ১১০১)। এরপর যথাক্রমে মোহাম্মদ আর ডি রনির মেসার্স প্রোসার্চ রিক্রুটমেন্ট কনসালন্টেস (আরএল ১০২৭), বায়রার সাবেক সহসভাপতি আবদুল হাইয়ের গ্রীনল্যান্ড ওভারসীজ (আরএল-৪০), মো. ফরিদ আহম্মেদের মেসার্স আল খামিজ ইন্টারন্যাশনাল (আরএল ৬৮০), মোহাম্মদ মোকাদ্দেম হোসেনের শুভ্র ইন্টারন্যাশনাল এন্ড ট্রাভেলস (আরএল ১১০৬), মো. আব্দুল হালিমের মেসার্স ; িহিউম্যান রিসোর্স বাংলাদেশ (আরএল-১০৮০), আব্দুল আলিমের এস এ ট্রেডিং (আরএল-০৮৪), হেমায়েত হোসন খোকার কেয়া ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল (আরএল-৭৫৩), মো. সবুর খানের মেসার্স গ্লোবাল রিক্রুটিং এজেন্সি (আরএল ১৩২৪), গোলাম কবীরের মেসার্স কে এম ইন্টারন্যাশনাল (আরএল ১২৯৪) ও আশফাকআহম্মেদের মেসার্স আহাম্মেদ এন্ড কোম্পানি (আরএল ০৮১)।

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি